খুব দ্রুত ব্রণ নিরাময়ে প্রাকৃতিক ১০ টি উপাদানের নাম যা সত্যিই কাজ করবে।

0
141
acne-thefocusunlimited.com

ব্রণ হলো এমন একটি চর্মরোগ যা মূলত মুখে, পিঠে, বুকে ও গলায় হয়। এর ফলে চেহারার সৌন্দর্য নষ্ট হয়। ব্রণ হয়ে সেরে গেলে অনেক সময় ব্রণের দাগ থেকে যায় যা আরো বেশি বিরক্তিকর।

ব্রণ মূলত বয়ঃসন্ধি কালে ছেলে মেয়ে সবারই হয়ে থাকে। তবে মেয়েদের ই ব্রণ বেশি হয়। আবার অনেকের জেনেটিক কারণেও ব্রণ হয়ে থাকে। ব্রণ নিরাময়ে বেশ কিছু প্রাকৃতিক উপাদান আছে যা অবিশ্বাস্য ভাবে কাজ করে। আমরা আজকে সেগুলো নিয়েই আলোচনা করবো।

উপাদান গুলোর নামঃ

  1.  ডিমের সাদা অংশ
  2.  টুথপেষ্ট
  3.  অ্যালোভেরা জেল
  4.  লেবুর রস
  5.  টমেটো
  6.  বেকিং সোডা
  7.  নিমপাতা
  8.  তুলসী পাতা
  9.  রসুন
  10.  বরফ

নিচে বিস্তারিত ভাবে এদের ব্যবহার বিধি আলোচনা করা হলোঃ

১. ডিমের সাদা অংশঃ

ব্রণ দূর করার সবচেয়ে সহজ ও কার্যকর উপাদান হলো ডিমের সাদা অংশ। এতে রয়েছে ভিটামিন ও অ্যামিনো এসিড যা ব্রণ দূর করতে সহায়ক।

The white part of the egg | TheFocusUnlimited.com

ব্যবহারের নিয়মঃ

  • ২ টি ডিমের সাদা অংশ একটি বাটিতে নিয়ে ভালো করে ফেটুন তারপর ব্রণের মধ্যে লাগান
  • শুকিয়ে গেলে আবার লাগান এভাবে ৪ বার লাগাবেন।
  • ২০ মিনিট অপেক্ষা করবেন। তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিবেন।
  • তারপর ভালো মানের ময়েশ্চারাইজার লাগাবেন।

২. টুথপেষ্টঃ

ব্রণের জন্য টুথপেষ্ট একটি কার্যকর উপাদান। এটি ব্রণের উপর লাগালে ব্রণ ও ব্রণের ফোলা ভাব কমে যায়।

toothpaste-thefocusunlimited.com

ব্যবহারের নিয়মঃ

  • কিছু পরিমাণে টুথপেষ্ট নিয়ে নিন।
  • এবার রাতে ঘুমাতে যাবার আগে ব্রণের উপর লাগান।
  • সারারাত রেখে সকালে উঠে ধুয়ে ফেলুন।
  • এবার নিজেই দেখুন আপনার ব্রণের ফোলাভাব কমেছে।
  • নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণ সেরে যাবে। 

৩. অ্যালোভেরা জেলঃ

অ্যালোভেরা জেলে বিদ্যমান উপাদান ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। এটি ব্রণ ও ব্রণের দাগের সাথে সাথে ত্বককে আরো সুন্দর, মসৃণ ও টান টান করে তোলে।

Aloe vera gel

ব্যবহারের নিয়মঃ

  • অ্যালোভেরা জেল বের করে নিয়ে পুরো মুখে লাগান।
  • ৩০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।
  • এটি ব্রণের প্রকৃতি অনুযায়ী দিনে ২ বার লাগাতে পারবেন।

৪. লেবুর রসঃ

লেবুর রস ত্বকের উপর অ্যান্টিসেপটিকের মত কাজ করে। লেবুর সিস্ট্রিক অ্যাসিড ব্রণ শুকাতে সাহায্য করে। লেবুর রস ব্যবহারে ব্রণ ভালো হয়ে যায়।

lemon-juice-thefocusunlimited.com

ব্যবহারের নিয়মঃ

  • লেবুর রস নিয়ে নিন।
  • এবার ব্রণের উপর বা পুরো ত্বকে লাগান।
  • জ্বালাপোড়া করলে ধুয়ে ফেলুন।
  • যদি জ্বালাপোড়া না করে তবে সারা রাত লাগিয়ে রাখতে পারেন।
  • ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৫. টমেটোঃ

টমেটো যেকোনো সংক্রমণ সারাতে কাজ করে। রূপচর্চা টমেটো ছাড়া ভাবাই যায় না। টমেটো ব্রণের সাথে সাথে তার দাগ ও দূর করতে সাহায্য করে। সাথে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়।

tomato-thefocusunlimited.com.png

ব্যবহারের নিয়মঃ

  • টমেটো ভালো করে ধুয়ে নিন।
  • এবার টুকরো করে কাটুন।
  • চাইলে বেঁটে নিতে পারেন
  • এবার মুখে লাগান।
  • কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন।

৬. বেকিং সোডাঃ

বেকিং সোডা ব্রণ দূর করতে সহায়ক একটি উপাদান। বেকিং সোডা অতিরিক্ত তেল শুষে নেয় সেই সাথে ত্বকে থাকা মৃত কোষ গুলোকে পরিস্কার করে।

baking-soda-thefocusunlimited.com

ব্যবহারের নিয়মঃ

  • ১ চামচ বেকিং সোডা নিয়ে নিন।
  • সামান্য পানি মেশান।
  • লেবুর রস দিয়ে দিন।
  • এবার পেস্ট তৈরি করুন।
  • ব্রণের উপর লাগান।
  • শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
  • দিনে ২ বার করতে পারেন এই কাজটি। তবে বেশিক্ষণ ত্বকের উপর রাখবেন না।

৭. নিমপাতাঃ

নিমপাতা ব্রণ সারাতে অনেক ভূমিকা পালন করে। নিম পাতায় আছে এমন কিছু উপাদান যা জীবানু ধ্বংস করে। ফলে নিমপাতা একটি কার্যকর উপাদান।

neem-leaves-thefocusunlimited.com

ব্যবহারের নিয়মঃ

  • কিছু নিম পাতা নিয়ে নিন।
  • ভালো করে ধুয়ে নিবেন।
  • এবার নিম পাতা বেঁটে পেস্ট তৈরি করুন।
  • মুখে লাগান। চাইলে গোলাপ জল ও মিশাতে পারেন।
  • ২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।
  • ব্রণের প্রকৃতি অনুযায়ী প্রতিদিন ব্যবহার করতে পারেন।

৮. তুলসী পাতাঃ

তুলসী পাতা হলো সকল রোগের মহা ঔষুধ। তুলসী পাতার গুন আমরা সবাই জানি। তুলসী পাতাতে বিদ্যমান উপাদান খুব দ্রুত ব্রণ নিরাময় করতে যথেষ্ট কার্যকর।

Basil leaves-thefocusunlimited.com

ব্যবহারের নিয়মঃ

  • তুলসী পাতা ভালো করে ধুয়ে নিন।
  • বেঁটে রস বের করুন।
  • এবার ব্রণের উপর লাগান।
  • ১৫-২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।
  • প্রতিদিন লাগাতে পারেন এই রস।

৯. রসুনঃ

রসুনে আছে অ্যান্টিব্যকটেরিয়াল উপাদান যা ব্রণের জীবানু ধ্বংস করে খুব দ্রুত ব্রণ নিরাময় করে। রসুন ব্রণ ও ব্রণের দাগ দূর করে।

garlic-thefocusunlimited.com.png

ব্যবহারের নিয়মঃ

  • কয়েক কোয়া রসুন নিন।
  • এবার বেঁটে পেস্ট তৈরি করুন।
  • সামান্য পানি দিন।
  • ব্রণের উপর লাগান।
  • ৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

১০. বরফঃ

বরফ দিয়ে প্রাথমিকভাবে শুরু করে দিন দ্রুত ব্রণ নিরাময় চিকিৎসা। বরফ সবার হাতের কাছেই থাকে। এটা ব্রণের ফোলাভাব কমিয়ে ব্রণকে ছোট করে।

ব্যবহারের নিয়মঃ

  • বরফের টুকরো নিয়ে নিন।
  • এবার টুকরোটি কে একটা সুতি কাপরের মধ্যে পেচিয়ে নিন।
  • এবার ব্রণের উপর কয়েক মিনিট ঘষুন।

কিছু টিপসঃ

ব্রণ হোক বা না হোক কিছু বিষয় সবসময় মাথায় রাখবেন আর নিয়ম করে মেনে চলার চেষ্টা করবেন। তাহলে যে কোন সমস্যা মোকাবিলা করা সম্ভব। বিষয় গুলো হলো,

  • সবসময় ত্বক, হাত, পা, শরীর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার চেষ্টা করবেন।
  • দিনে ৩ বার সাবাম দিয়ে মুখ পরিষ্কার করবেন।
  • প্রতিদিন ৬-৮ ঘন্টা সাউন্ড স্লিপ দেয়ার চেষ্টা করবেন।
  • প্রতিদিন রাতে শোবার সময় ও সকালে ঘুম থেকে উঠে পানি পান করবেন।
  • ব্রণ হলে তা নখ দিয়ে খুঁটবেন না।
  • মাথা খুশকি মুক্ত রাখার চেষ্টা করবেন।
  • সবুজ তাজা শাক সবজী খাবেন।
  • অতিরিক্ত তেল ও মশলা জাতীয় খাবার বর্জন করুন।

পরিশেষে,

ব্রণ ত্বকের জন্য খুবই ক্ষতিকর। এটি ত্বকের সৌন্দর্য নষ্ট করে দেয়। ব্রণ হলে যত্ন নেয়া জরুরি। ঠিকমতো চিকিৎসা নিলে ব্রণ ভালো হবেই। ব্রণ নিরাময়ে আজকাল উন্নত চিকিৎসা ও বের হয়েছে। তবে অনেকেই চিকিৎসা করাতে চায় না। তাই তারা অবশ্যই প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করবেন নিয়মিত। দেখবেন আপনার ব্রণ সেরে যাবে তাড়াতাড়ি।

।। (আপনাদের মতামত অথবা কোন প্রশ্ন থাকলে তা অবশ্যই কমেন্ট বক্সে লিখতে ভুলবেন না। আমরা যথাসম্ভব চেষ্টা করবো সমাধান দেয়ার জন্য। আশা করছি আমার কথাগুলো একটু হলেও আপনাকে সাহায্য করবে।)।। ।।ধন্যবাদ পাশে থাকার জন্য।।